ঢাকাবুধবার , ২২ নভেম্বর ২০২৩
  1. অপরাধ ও দুর্নীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. আহত
  4. এওয়ার্ড
  5. কৃষি
  6. খেলাধুলা
  7. জাতীয়
  8. তথ্য প্রযুক্তি
  9. দিবস
  10. ধর্ম
  11. নির্বাচন
  12. বিনোদন
  13. মৃত্যু
  14. রাজনীতি
  15. শিক্ষা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আমতলীতে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মামলা, তদন্তের নির্দেশ

Ranisankailnews24
নভেম্বর ২২, ২০২৩ ৮:৩৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি: বরগুনার আমতলী উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিন্টু মল্লিকের বিরুদ্ধে বুধবার সকালে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে নিলিমা আকতার নামে এক নারী মামলা দায়ের করেছে। আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের পুলিশ পরিদর্শককে ৭ দিনের মধ্যে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ১৪ নভেম্বর মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ টেপুরা গ্রামের সিদ্দিক মাদবরের স্ত্রী নিলিমা আকতারকে বাড়িতে একা পেয়ে হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিন্টু মল্লিক ও তার ৩ সহযোগিকে নিয়ে ওই গৃহবধূকে ধষর্ণের চেষ্টা চালায়। ধর্ষণে ব্যার্থ হয়ে ইউপি চেয়ারম্যান তার সহযোগী বাহাদুর মল্লিক, সোহেল মল্লিক ও হানিফ প্যাদার সহযোগিতায় গৃহবধূ নিলিমাকে ব্যাপক মারধর করে রক্তাক্ত জখম করে। ওই সময় তার ডাক চিৎকার শুনে স্বামী সিদ্দিক মাদবর স্ত্রীকে উদ্ধারের জন্য এগিয়ে গেলে তাকেও মারধর করে। এক পর্যায়ে স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতালে যাওয়ার পথে অফিস বাজারের মতি মাদবরের দোকানের সামনে বসে দ্বিতীয় দফা মারধর করে এবং পুলিশকে না জানাতে শাসিয়ে যায় এবং চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিতেও বাঁধা দেয়। পরে ওই দিন গভীর রাতে চেয়ারম্যানের চোঁখ ফাকি দিয়ে পটুয়াখালী হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন।

ওই ঘটনায় ভিকটিম নিলিমা আকতার চিকিৎসা শেষে আজ বুধবার বরগুনার নারী ও নির্যাতন দমন ট্রাইব্যনালে ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিন্টু মল্লিক ও তার ৩ সহযোগি বাহাদুর মল্লিক, সোহেল মল্লিক ও হানিফ প্যাদার বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলাটি আমলে নিয়ে ট্রাইব্যুনালের বিজ্ঞ বিচারক মোঃ মশিউর রহমান খান বরগুনার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের পুলিশ পরিদর্শক মোঃ কালাম খানকে তদন্ত করে আগামী ৭দিনের মধ্যে আলাদলে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন।

বরগুনা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের পাবলিক রিলেশন অফিসার পুলিশ পরিদর্শক মোঃ কালাম খান বলেন, আদালতের নির্দেশ এখনো হাতে পাইনি। হাতে পাওয়া গেলে তদন্ত কার্যক্রম শুরু করা হবে।

ভিকটিম মামলার বাদী নিলিমা আকতার অভিযোগ করে বলেন, হলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান প্রায় আমাকে উত্যক্ত করত। গত মঙ্গলবার আমাকে বাড়িতে একা পেয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় না পেরে আমাকে মারধর করে গুরুতর জখম করে। আমার স্বামী রক্ষার জন্য এগিয়ে এলে তাকেও মারধর করে। এমনকি আহত অবস্থায় আমাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালেও নিতেও দেয়নি। এবং পুলিশকেও না জানাতে শাসায়। আমি ওই ঘটনার আমি বিচার চাই।

হলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিন্টু মল্লিক ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, মামলার বাদী ওই নারীকে আমি চিনিই না। তার স্বামী এলাকায় একজন চিহ্নিত মাদক কারবারী। এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে সম্প্রতি ওই মাদক কারবারীকে ইউপি কার্যালয়ে ধরে এনে বিচার করায় আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে এমন মিথ্যা অভিযোগে আমার নামে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, বিষয়টি আমার জনা নেই। আদালতের নির্দেশনা অনুয়ায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।