ঢাকারবিবার , ২৩ অক্টোবর ২০২২
  1. অপরাধ ও দুর্নীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. আহত
  4. এওয়ার্ড
  5. কৃষি
  6. খেলাধুলা
  7. জাতীয়
  8. তথ্য প্রযুক্তি
  9. দিবস
  10. ধর্ম
  11. নির্বাচন
  12. বিনোদন
  13. মৃত্যু
  14. রাজনীতি
  15. শিক্ষা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নাটোরে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ভুয়া বিল ভাউচার দেখিয়ে সরকারি বরাদ্দের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

Ranisankailnews24
অক্টোবর ২৩, ২০২২ ৯:৩৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

খঃ তানজিবুল স্টাফ রিপোর্টারঃ নাটোরে ভুয়া বিল ভাউচার তৈরি করে সরকারি বরাদ্দের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে এক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে।

সম্প্রতি কিছু সচেতন এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে নাটোর জেলার সদর উপজেলার কাফুরিয়া ইউনিয়নের পাইকপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গেলে গনমাধ্যমকর্মীরা প্রধান শিক্ষক কর্তৃক ভুয়া বিল ভাউচারে অর্থ আত্মসাতের বিষয়টির সত্যতা খুঁজে পান।

এ সময় প্রধান শিক্ষকের নিকট সংরক্ষিত অবস্থায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নামের ক্রয় বিক্রয়ের রশিদ সংগ্রহ করে সেই সকল প্রতিষ্ঠানে ফোন দিতে থাকলে প্রধান শিক্ষক আব্দুল আউয়াল বলেন, এগুলো ভুয়া বিল ভাউচার।
এগুলো কিভাবে তৈরি করেছেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি উপজেলা প্রকৌশলী অফিসের জনৈক কর্মচারীর কাছ থেকে দুই হাজার টাকা ঘুষ দিয়ে করিয়ে নিয়েছেন বলে জানান। অর্থ আত্মসাতের কথা স্বীকার করে প্রধান শিক্ষক আব্দুল আউয়াল বলেন, আমি তো আপনাদের কাছে সবকিছু সত্য কথাই বলে দিলাম। আমরা কয় টাকা বেতন পাই। আপনাদের আত্মীয়স্বজন চাকরি করলে খোঁজ নিয়ে দেখেন। খুবই সামান্য বরাদ্দ আসে। আর সবাই এভাবেই কাজ করে। প্লিজ কোনো নিউজ করে মান সম্মান নষ্ট করেন না। বলে গনমাধ্যমকর্মী কে টাকা দিয়ে তার অপরাধ ঢাকার চেষ্টা করেন ওই প্রধান শিক্ষক।
এদিকে ভূয়া বিল ভাউচারে ওই বিদ্যালয়ের মেরামত কজের রাজমিস্ত্রি ইব্রাহিম আলীর নামে ৬০,৫০০/- টাকা বিল ভাউচার করেছেন প্রধান শিক্ষক। সরেজমিনে রাজমিস্ত্রী ইব্রাহিমে কাছে এই বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি পাইকপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কোন কাজ করিনি, কাজ করেছে মানিক মিস্ত্রি। মুঠোফোনে মানিক মিস্ত্রি বলেন ওই বিদ্যালয়ের কাজ আমি করেছি, আমার কাজের বিল দিয়েছে ১০,৭০০/-টাকা, ৩২ বস্তা সিমেন্টে কাজ করে প্রধান শিক্ষক ৮০ বস্তার বিল করেছেন।

এ বিষয়ে পাইকপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মাহবুব উল আলম বলেন, ২০২১-২২ অর্থ বছরে ৪ লাখ ১০ হাজার টাকা সরকারি বরাদ্দ আসে। আমি প্রধান শিক্ষক কে বিশ্বাস করে সঠিকভাবে কাজগুলো করতে বলি। কিন্তু উনি ভুয়া বিল ভাউচার তৈরি করে নামমাত্র কাজ করে পুরো টাকা উত্তোলন করেছেন।

এই বিষয়ে নাটোর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার গোলাম নবী বলেন,পাইক পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল আওয়ালের বিরুদ্ধে আমরা অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।