ঢাকামঙ্গলবার , ৩ জানুয়ারি ২০২৩
  1. অপরাধ ও দুর্নীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. আহত
  4. এওয়ার্ড
  5. কৃষি
  6. খেলাধুলা
  7. জাতীয়
  8. তথ্য প্রযুক্তি
  9. দিবস
  10. ধর্ম
  11. নির্বাচন
  12. বিনোদন
  13. মৃত্যু
  14. রাজনীতি
  15. শিক্ষা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

লালপুরে বারবার জরিমানা,তবুও থেমে নেই ভেজাল গুড় তৈরি কারখানার মালিকরা

Ranisankailnews24
জানুয়ারি ৩, ২০২৩ ১২:৫১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

মেহেরুল ইসলাম মোহন নাটোরঃ নাটোরের লালপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ভেজাল গুড় তৈরির কারখানায়,পুলিশ,RAB,ডিবি,মোবাইল কোর্ট/ভ্রাম্যমাণ আদালত ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর বিভাগের কর্মকর্তারা বারবার অভিযান চালিয়ে ভেজাল গুড়,রং,চুন,ফিটকিরি,ডালডা,ময়দা ও মানবদেহের ক্ষতিকারক অন্যান্য উপকরণ জব্দ,ধ্বংস করা সহ অর্থ জরিমানা এবং জনস্বার্থে লিফলেট বিতরণ করা হলেও

কোন ভাবেই থেমে নেই ভেজাল গুড় তৈরির কারখানার মালিকরা।
এক দিকে চলছে জরিমানা অন্য দিকে রাতের আধারে চলছে ভেজাল গুড় তৈরির কাজ।মঙ্গলবার(৩রা জানুয়ারি-২০২৩) সকালে লালপুর উপজেলার মোহরকয়া,দুড়দুড়িয়া,চরজাজিরা সহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ঘুরে দেখা গেছে,স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর চুন, হাইড্রোজ,ফিটকিরি, ডালডা,রং ও রাসায়নিক পদার্থের সাথে চিনি মিশিয়ে ৭-৮ দিন আগের সংরক্ষিত পচা খেজুর রস নাম মাত্র মিশিয়ে ভেজাল খেজুর গুড় তৈরি করছে অসাধু ভেজাল গুড় ব্যবসায়ীরা।
এ বিষয়ে উপজেলার মোহরকয়া মধ্যপাড়া গ্রামে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক ব্যাক্তি বলেন,আমাদের এলাকায় মহসিন গুড় ভান্ডার কে ৩/৪ বার প্রশাসন এসে জরিমানা করেছে,জনস্বার্থে লিফলেট বিতরণ করেছে, কয়দিন আগেও ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করলো প্রশাসন তবুও থেমে নেই,একদিকে জরিমানা দিচ্ছে অন্যদিকে কাজও চলছে।

লালপুরের চিনির বটতলা এলাকায় এক বৃদ্ধ বলেন,আমাদের এলাকায় সাগর গুড় ভান্ডার সহ
বেশ কয়েকজন অসাধু গুড় ব্যবসায়ী ভেজাল গুড় তৈরি করে।কয়দিন আগেও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা দিয়েছে প্রশাসনকে।
তিনি আরো বলেন,
মাঝে মাঝে প্রশাসন আসে গুড় জব্দ করে,জরিমানা করে,পরে যেই প্রশাসন চলে যায়, আবারও তাদের কাজ শুরু হয়।
চর জাজিরার এলাকার লোকজন জানান,কয়েক দিন আগেও নাজিম গুড় ভান্ডারের মালিক ভেজাল গুড় তৈরির দায়ে ২ লক্ষ টাকা জরিমানা দিয়েছে তার পরেও থেমে নেই,প্রশাসন চলে যাওয়ার পর থেকেই আবাও শুরু হয়েছে তাদের কাজ।
প্রশাসনের চোঁখ ফাঁকি দিতে দিনের বেলা গুড় তৈরি না করতে পারলেও রাতের বেলায় ধুম পড়ে যায় ভেজাল গুড় উৎপাদনের।রাত যত বাড়ে পাল্লা দিয়ে ব্যাস্ততাও বাড়ে ভেজাল গুড় তৈরির কারিগরদের এমনটাই দাবি জানিয়েছেন দুড়দুড়িয়া বাজার এলাকার সচেতন মহলরাও।

এ বিষয়ে,লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার সুরুজ্জামান শামীম বলেন, আজকাল খেজুর গুড়ে মেশানো হয় চিনি ও কৃত্রিম রঙ, যা স্বাস্থ্যের জন্য নিতান্তই ঝুঁকিপূর্ণ।
এ ধরনের ভেজাল দ্রব্য মিশ্রিত খাদ্য মানবদেহে প্রবেশের ফলে ক্যানসারের মতো রোগের সৃষ্টি হতে পারে। মানুষের বিভিন্ন অর্গ্যান ড্যামেজ হতে পারে। শিশুদের জন্য তো এমন খাদ্য মারাত্মক ক্ষতিকর। এসব খাদ্য থেকে অবশ্যই বিরত থাকতে হবে।

এ বিষয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর নাটোর জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মেহেদী হাসান তানভীর জানান,ভেজাল গুড় তৈরির কারখানায় আমাদের অভিযান চলমান আছে,জনস্বার্থে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।